শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১০:৩৮ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি....
“সরকারের দিক-নির্দেশনা মেনে চলি, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ করি।” অনলাইন নিউজ পোর্টাল “আজকের দিগন্ত ডট কম” এর পক্ষ থেকে আপনাকে জানাচ্ছি স্বাগতম , সর্বশেষ সংবাদ জানতে এখনই ভিজিট করুন “আজকের দিগন্ত ডট কম” (www.ajkerdiganta.com) । বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের জন্য পরিশ্রমী, মেধাবী এবং সাহসী প্রতিনিধি আবশ্যক, নিউজ ও সিভি পাঠানোর ঠিকানাঃ-- ajkerdiganta@gmail.com // “ধুমপান স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর, আসুন আমরা মাদক’কে না বলি”
সংবাদ শিরোনাম....
প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন পালন করেছে শিবপুর উপজেলা প্রশাসন আশুলিয়া থানায় ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত সিরাজগঞ্জে আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় আনসার ভিডিপি সদস্যদের ভূমিকা শীর্ষক মতবিনিময় শিবপুরে আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত শিবপুর উপজেলায় শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক সাদিয়া, সভাপতি আসাদ গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন (বিবিএ) ইউজিসি’র অনুমোদন মানিকগঞ্জ সাটুরিয়ায় আখ চাষের বাম্পার ফলন কৃষকের মুখে হাসি আশুলিয়ায় কাঠগড়া এলাকায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন সাটুরিয়া বালিয়াটী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন জানিয়েছেন- নবনিযুক্ত ডেপুটি স্পিকার

বিশ্বভারতী শান্তিনিকেতনের শিল্পীবৃন্দ কর্তৃক রবিঠাকুরের নৃত্যালেখ্য বর্ষামঙ্গল মঞ্চস্থ

বিশ্বভারতী শান্তিনিকেতনের শিল্পীবৃন্দ কর্তৃক রবিঠাকুরের নৃত্যালেখ্য বর্ষামঙ্গল মঞ্চস্থ

 

সিরাজগঞ্জ থেকে এসএম আশরাফুর ইসলাম জয়ঃ— ষোলটি গান ষোলটি সৃষ্টি। শৈলজারঞ্জন মজুমদার নানা কৌশলে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে দিয়ে গানগুলো করিয়ে নিলেন। কখনও নানা রাগে গান সৃষ্টির কথা বলে, কখনও বর্ষার নতুন বিষয়ে গান তৈরির বায়নায়। আর এভাবেই যখন ষোলটি গান সৃজন পূর্ণ হল তখন সেটি সমষ্টি হয়ে পরিণত হল গীতি-আলেখ্য ‘বর্ষামঙ্গল’-এ, যা প্রথম পরিবেশিত হয় রবীন্দ্রনাাথ ঠাকুরের জীবদ্দশায় ১৯৩৯ সালে। সেই বর্ষামঙ্গলই ২০১৯ সালে এসে সিরাজগঞ্জ শহীদ এম. মনসুর আলী অডিটোরিয়ামে মঞ্চে উপস্থাপিত হল নৃত্যালেখ্য রূপে।

বর্ষনির্ভর ষোলটি গানের সঙ্গে যুক্ত হল নাচের মুগ্ধকর পরিবেশনা আর নেপথ্যে উচ্চারিত হল প্রতিটি গানের সৃষ্টিকথা। পুরো পরিবেশনায় অংশ নিলো কলকাতার শান্তিনিকেতনের শিল্পীরা। অডিটোরিয়ামে ভর্তি দর্শক শ্রোতার উপভোগ করলেন ৩ ঘণ্টার এক রবীন্দ্রময় সন্ধ্যা।

সিরাজগঞ্জ শহীদ এম. মনসুর আলী অডিটোরিয়ামে রবিবার সন্ধ্যায় এই পরিবেশনাটির আয়োজন করে জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মিলন পরিসদ্, সিরাজগঞ্জ।

বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের একান্ত সহচর সঙ্গীতগুরু আচার্য শৈলজারঞ্জন মজুমদারের ১১৯তম জন্মবার্ষিকী উদযাপনের অংশ হিসেবে এ নৃত্যালেখ্যটি পরিবেশিত হয়।

প্রধান অতিথি ছিলেন, কবির বিন আনোয়ার, পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের মাননীয় সচিব। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, টুটুল চক্রবর্তী বি পি এম পুলিশ সুপার, সিরাজগঞ্জ। টি এম সোহেল অধ্যক্ষ সিরাজগঞ্জ সরকারি কলেজ। করুণা রাণী সাহা প্রাক্তন অধক্ষ সিরাজগঞ্জ সরকারি কলেজ। এস এম বি বিপ্লব পরিচালক রবির কিরণে শৈলজারঞ্জন ও কর্ণধার- চয়নিকা। এছাড়াও বিশ্বভারতীর দুই সাবেক ভিসি ড. সুজিত কুমার বসু ও ড. স্বপন কুমার দত্ত এবং উপমহাদেশের প্রখ্যাত মনিপুরী নৃত্যগুরু গুরু শ্রীমতি মিনাক্ষী বসু।

সভাপতিত্ব করেন ডঃ ফারুক আহাম্মেদ, জেলা প্রসাশক সিরাজঞ্জ এবং অনুষ্ঠানটি উদ্বোধক করেন ডঃ জান্নাত আরা তালুকদার হেনরী, সভাপতি জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মিলন পরিসদ্, সিরাজগঞ্জ। সঞ্চালাক ছিলেন নূরে আলম খান হীরা সাধারন সম্পাদক জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মিলন পরিসদ্, সিরাজগঞ্জ।

আয়োজনের শুরু হয় সিরাজগঞ্জের শিল্পীদের পরিবেশনায় শতকন্ঠে ‘সুরের গুরু দাও দাও সুরের দীক্ষা’ সমবেত সঙ্গীতে। এরপর ছিল নাতিদীর্ঘ আলোচনা পর্ব। আর তার পরই ছিল বর্ষামঙ্গল নৃত্যালেখ্যের পরিবেশনা। মঞ্চের পেছনের সারিতে বসেছিলেন সঙ্গীতশিল্পীরা। তাদের সঙ্গে দু’জন ধারাভাষ্যকার যারা গানের প্রেক্ষাপট তুলে ধরছিলেন। আর তার পরপরই গানটির পরিবেশনার সঙ্গে যুক্ত হয় নাচের অভিব্যক্তি। সবগুলো গানই ছিল নানা রাগে সৃষ্ট বর্ষা ও বর্ষাকালকে ঘিরে।

রবীন্দ্রনাথের নির্দেশনায় যে যন্ত্রগুলো ব্যবহৃত হয়েছিল সেগুলোর আশ্রয়েই এগিয়ে যায় পরিবেশনা পর্ব। গানের সুরের সঙ্গে চলে নাচের দোলা। প্রথম গানটি ছিল ‘ওগো সাঁওতালি ছেলে’। এরপর একে একে পরিবেশিত হয় ‘বাদল দিনের প্রথম কদম ফুল’, ‘আজি তোমায় আবার চাই সোনাবারে’, ‘এসো গো জ্বেলে দিয়ে যাও প্রদীপখানি’, ‘শ্রাবণের গগনের গায়’, ‘আজি ঝরঝর মুখর বাদর দিনে’, ‘স্বপ্নে আমার মনে হলো’, ‘এসেছিলে তবু আসো নাই’, ‘এসেছিনু দ্বারে তব শ্রাবণও রাতে’, ‘নিবিড় মেঘের ছায়ায় মন দিয়েছি মেলে’, ‘পাগলা হাওয়ার বাদল দিনে’, ‘সগনও গহনও রাত্রি’, ‘ওগো তুমি পঞ্চদশী’, ‘রিমিক ঝিমিক ঝরে’সহ ষোলটি গান। গানগুলো গেয়ে শোনান শিখা চ্যাটার্জী, শুভশ্রী বসু ও ড. মানস ভূল। তাদের গাওয়া গানের সুরে নৃত্য পরিবেশন করেন তন্ময় পাল, কৃষ্ণেন্দু দে, সহলেী নন্দী, ঐন্দ্রিলা পাল ও তানিসা সিংহ। প্রতিটি গানের নেপথ্য গল্প তুলে ধরেন স্বপ্না দে ও শাশ্বতী গুহ। নৃত্য পরিচালনায় ছিলেন ড. সুমিত বসু। যন্ত্রবাদনে অংশ নেন তবলা ও খোলে চঞ্চল নন্দী, এস্রাজ বাদক সৌগত দাস। জাতীয় সঙ্গীতের পরিবেশনার মধ্য দিয়ে শেষ হয় এ আয়োজন।

Print Friendly, PDF & Email

খবরটি শেয়ার করুন....



Leave a Reply

Your email address will not be published.



বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন

করোনা ইনফো (কোভিড-১৯)

 

 

 

 

পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের সময়সূচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৪:৩৯ পূর্বাহ্ণ
  • ১১:৫১ পূর্বাহ্ণ
  • ১৬:০৬ অপরাহ্ণ
  • ১৭:৪৯ অপরাহ্ণ
  • ১৯:০২ অপরাহ্ণ
  • ৫:৪৯ পূর্বাহ্ণ

জনপ্রিয় পুরাতন হিন্দি গান

জনপ্রিয় বাউল গান

[print_masonry_gallery_plus_lightbox]




জনপ্রিয় পুরাতন বাংলা গান

সর্বশেষ সংবাদ জানতে



আমরা জনতার সাথে......“আজকের দিগন্ত ডট কম”

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত “আজকের দিগন্ত ডট কম”।  অনলাইন নিউজ পোর্টালটি  বাংলাদেশ তথ্য মন্ত্রনালয়ে জাতীয় নিবন্ধন প্রক্রিয়াধীন।

Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Shares
x